শেখ হাসিনার যাওয়ার পর আমি মাথা তুলে ও সামনে পাশে চেয়ে দেখলাম, ট্রাকের দক্ষিণে, পশ্চিমে ও উত্তরে রক্তমাখা অনেক লাশ, আহত লোকজন এবং দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গাদি রাস্তায় ছড়িয়ে পড়ে আছে। আমি লক্ষ্য করেছি পূর্ব দিক থেকে একটি পুলিশ ভ্যান এসে ট্রাকটির দক্ষিণ-পূর্ব দিকে থামল, ৫-৬ জন পুলিশ ভ্যান থেকে লাফিয়ে নেমে ছড়ানো লাশ, কয়েকজন আহত মানুষ ও বিচ্ছিন্ন হাত পা ট্রাকে উঠিয়ে ঘুরে দ্রুত গতিতে পূর্বদিকে চলে গেল। এই পিকআপ ভ্যানটি ট্রাকের পশ্চিমে বা উত্তর দিকে যায়নি। ট্রাকের উত্তর ও পশ্চিম দিকে ছড়ানো লাশ ও আহত মানুষ জনকে আমাদের দলীয় কর্মীরা তুলে এ্যাম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, গাড়ি ও রিক্সাভ্যানে করে হাসপাতাল, ক্লিনিক বা নিরাপদ স্থানে পাঠাতে থাকেন। কর্মীরা যখন মৃত ও আহতদের নিয়ে ব্যস্ত এবং অন্যরা দলের কেন্দ্রীয় অফিস ও আশপাশের দোকানগুলো ও রাস্তার পূর্ব প্রান্তের দিকে নিরাপত্তার জন্য দৌড়ে যাচ্ছিলেন তখন পুলিশ তাদের ওপর বেধড়ক লাঠিচার্জ করে ও টিয়ার গ্যাস শেল ছোড়ে। গোলাপ শাহ্ মাজারের দিক থেকেও টিয়ার গ্যাস ছোড়া হয়।

বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ